নাস্তিকতার স্বরূপ সন্ধান
মাত্র ৪০ টাকায় বাংলাদেশের যে কোন প্রান্তে বই পৌছে দেয়া হয় 
২-৫ দিনের মধ্যে বিতরণ যোগ্য

নাস্তিকতার স্বরূপ সন্ধান

খুবই সম্প্রতি প্রকাশিত বাংলাদেশের বর্তমান প্রেক্ষাপটে একটি অত্যন্ত প্রাসঙ্গিক বই। বাংলাদেশে নাস্তিক ও নাস্তিকতা অনেক আগে থেকেই ছিল, বাম পন্থী দল গুলোর কল্যানে। কিন্তু শাহবাগী আন্দোলনের সময় এদের কুত্সিত রূপ সবার সামনে প্রকাশ পায়। এই নাস্তিকতা নিয়েই একটি যুগোপযোগী বই লিখেছেন উদীয়মান ও নবীন আলিম আবদুল্লাহ আল মাসউদ। বইটি প্রকাশ করেছে মাকতাবাতুল হেরা।

বইয়ের প্রথমেই তিনি নাস্তিকতা কি তা আলোচনা করেছেন। এরপর যেসব কারণে একজন জন্মগত মুসলিম নাস্তিকতার দিকে ঝুকে পরে এর প্রধান কারণ গুলি আলোচনা করেছেন। এরপর বাংলাদেশের সেই প্রাচীন ইতিহাস থেকে শুরু করে বর্তমান কাল পর্যন্ত ধর্মের ইতিহাস বর্ণনা করেছেন। বিশেষ করে খুব সাম্প্রতিক কাল পর্যন্ত বাংলার মানুষ যে ধার্মিক ছিলো ও প্রধানত সমাজতন্ত্রের প্রসারের মাধ্যমে বাংলাদেশে নাস্তিকতার প্রসার লাভ করে তা ইতিহাসের মাধ্যমে ফুটিয়ে তুলেছেন।

এরপর বাংলাদেশের কিছু ক্লাসিকাল নাস্তিক যেমন - আহমেদ শরিফ, হুমায়ুন আজাদ, তসলিমা নাসরিন, আরুজ আলী মাতুব্বর ও ব্লগার নাস্তিক যেমন থাবা বাবা, আসিফ মহিউদ্দিন ইত্যাদির ক্ষুদ্র পরিচয় দিয়েছেন। এছাড়াও বিভিন্ন ইসলাম বিরোধী ও নাস্তিক ওয়েবসাইট যেমন - somewhereinblog, মুক্তমনা, ধর্মকারী ইত্যাদির পরিচয় তুলে ধরেছেন। এরপর তিনি পরিচয় করিয়ে দিয়েছেন বিশ্বে মুসলিমদের বিরুদ্ধে নাস্তিকতা ও ধর্মহীনতার প্রসারে বিভিন্ন যে আন্তর্জাতিক সংস্থা কাজ করে ও আর্থিক ও অন্যন্য সহায়তা প্রদান করে তাদের সম্পর্কে।

পরিশেষে নাস্তিকতাবাদ প্রতিরোধে কি কি পদক্ষেপ নেয়া যেতে পারে তা সংক্ষিপ্ত ভাবে তুলে তিনি বইটি শেষ করেছেন।

আবদুল্লাহ আল মাসউদ সাহেব একজন উঠতি আলিম যিনি ইসলামী শিক্ষার পাশাপাশি বর্তমান বিশ্ব, সমাজ ও চারিদিক সম্মন্ধে ভালো জ্ঞান রাখার চেষ্টা করেন। খুব সম্ভবত এটা তার প্রথম বই। খুবই সাবলীল ও সংক্ষিপ্তাকারে কিন্তু টু দা পয়েন্টে লেখা বই। দোয়া করি উনার কারিয়ার যেন অনেক দীর্ঘ হয় এবং আরো এরকম উপকারী বই উনি আমাদের উপহার দেন। আল্লাহ উনার দুনিয়া ও আখিরাতে ভালো করুন।

যারা আমাদের দেশে নাস্তিকতাবাদের ইতিহাস জানতে আগ্রহী এই বইটি তাদের জন্য পরা আবশ্যক।

প্রথম প্রকাশ: মে, ২০১৬
৯৬.০০ ১৬০.০০
পৃষ্ঠা সংখ্যা : ১২৮
ভাষা: বাংলা
 

ফোনে অর্ডার দিতে কল করুন

০১৭২১-৯৯৯-১১২

১। আপনি ফোন বা অনলাইন এর মাধ্যমে অর্ডার করার পর কিতাব ঘর আপনার সাথে যোগাযোগ করবে এবং আপনার বিলি ঠিকানা নিশ্চিত করবে ।

২। SMS এর মাধ্যমে আপনাকে আপনার অর্ডার নং ও অর্ডার এর মুল্য পাঠানো হবে ।

৩। কিতাব ঘর এখন ঢাকা ও এর আশেপাশে ক্যাশ অন ডেলিভারী ও কুরিয়ার সার্ভিস এর মাধ্যমে বই পাঠাচ্ছে । এবং ঢাকার বাইরে কুরিয়ার সার্ভিস এর মাধ্যমে বই পাঠাচ্ছে ।

৪। বই পাঠানোর ১-২ দিনের মধ্যে আপনারা আপানদের ঠিকানাতে বই পেয়ে যাবেন। কিন্তু বাংলাদেশের অনেক গ্রাম বা প্রত্যন্ত এলাকা যেখানে কোনো কুরিয়ার সার্ভিস এর সেবা নাই , সেখানকার জন্য জেলা বা থানা শহরের কুরিয়ার সার্ভিস অফিস হতে বই সংগ্রহ করতে হবে ।

৫। বইয়ের মুল্য bKash, ডাচ বাংলা মোবাইল বা ক্যাশ অন ডেলিভারী এর মাধ্যমে প্রদান করা যাবে । বাংলাদেশের যে কোনো প্রান্তে ৪০ টাকায় বই পৌছে দেয়া হবে ।

৬। যারা বাংলাদেশের বাইরে থেকে অর্ডার করবেন, তাদের জন্য ডেলিভারী চার্জ বইয়ের ওজন ও দেশের উপর নির্ভর করবে । বিভিন্ন দেশের ও বিভিন্ন পরিমানের ডেলিভারী চার্জ দেখতে এখানে ক্লিক করুন ।

অনুগ্রহ করে কিতাবঘর ডট কমে লগইন করুন । লগইন

নাস্তিকতায় আমার হাতেখড়ি হয়েছিল ভার্সিটির দ্বিতীয় বর্ষে। সমবয়সী বন্ধুদের সঙ্গে স্রষ্টা আর দুনিয়াতে তার কর্তৃত্বের আলোচনা নিয়ে সংশয়ের শুরু। নেট ঘেঁটে মুক্তমনা ওয়েবসাইটের বিভিন্ন লেখনী পড়ে সংশয় মজবুত হতে শুরু করে। এই বইটি পড়তে যেয়ে মনে হয়েছে, নাস্তিকদের নয়, যেন নিজের অতীতের স্বরূপ সন্ধান করছি। কীভাবে মুসলিম পরিবারে বেড়ে উঠে কুর’আন তিলাওয়াত করতে শিখে, এসএসসিতে ইসলাম ধর্মে এ+ পেয়ে ভার্সিটির গণ্ডি পেরোতে না-পেরোতেই এই আমি নাস্তিক কিংবা সংশয়বাদী হয়ে উঠেছিলাম, এর প্রতি পাতায় যেন তারই নকশা দেওয়া আছে। নাস্তিকতার কারণ অনুসন্ধান করতে গিয়ে বর্তমান সময়ে একজন মানুষ কীভাবে নাস্তিক হয়ে ওঠে বা নিদেনপক্ষে ধর্মবিমুখ হয়ে ওঠে, তারই বিস্তারিত বর্ণনা আছে এখানে। মানবজাতির ইতিহাস কিংবা বাঙালির নিজ ইতিহাসে কীভাবে নাস্তিক এবং এর আড়ালে ইসলামবিদ্বেষী ধ্যানধারণা চাপিয়ে দেওয়া হচ্ছে, তারা স্পষ্ট বিবৃতি তুলে ধরা হয়েছে। গির্জার অত্যাচার ও অবিচার থেকে খ্রিষ্টধর্মের প্রতি সাধারণ মানুষের বিদ্রোহকে কীভাবে ইসলামের সাথে গুলিয়ে ফেলে ধর্মান্ধতার নামে ইসলামবিদ্বেষ ছড়ানো হচ্ছে, আছে তার বিবরণ। তাছাড়া নাস্তিকতা ও ইসলামবিদ্বেষ-প্রবণতা যে নতুন কিছু না, বরং ইসলামের দ্বিতীয় নাবি নূহ (তাঁর উপর শান্তি বর্ষিত হোক), তাঁর সময় থেকে এর শুরু এবং শেষ নাবি মুহাম্মাদ (তাঁর উপর বর্ষিত হোক আল্লাহর শান্তি ও অনুগ্রহ), তাঁর সময় থেকে আজ অবধি চলে আসছে, সেগুলোও তুলে ধরা হয়েছে। বইটির অন্যতম দিক হচ্ছে এখানে বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর থেকে বর্তমান সময় পর্যন্ত যারা নাস্তিকতা এবং বিশেষ করে ইসলামবিদ্বেষের পুরোধা ছিলেন, তাদের পরিচয় দেওয়া হয়েছে। তাদের কর্মপদ্ধতি উল্লেখ করা হয়েছে। ব্লগপূর্ব ও পরবর্তী যুগে কীভাবে নাস্তিকতা প্রসার হয়েছে, আর বর্তমান কারা তাদের নাস্তিকগুরুদের মশাল আগ বাড়িয়ে নিচ্ছেন, তাদের কর্মের খণ্ডচিত্রও আছে এখানে। আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে কারা নাস্তিকতার বিষ ছড়ানোর পেছনে কলকাঠি নাড়ছেন, এবং কীভাবে নাস্তিকদের মূল্যমান নির্ধারণ করা হয়, সেই সূত্রও দেওয়া হয়েছে। সবশেষে নাস্তিকতা বা ইসলামবিদ্বেষীদের প্রোপাগাণ্ডা দমানোর জন্য বাস্তবভিত্তিক কী কী পদক্ষেপ নেওয়া যায়, সে ব্যাপারেও দিকনির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। নিজে একসময় সংশয়বাদী ছিলাম বলে আমার কাছে বইটির বিষয়বস্তু ও গবেষণালব্ধ ফলাফল বেশ যথাযোগ্য মনে হয়েছে। নাস্তিক ও ইসলামবিদ্বেষী নিয়ে যারা কাজ করতে চান, যারা উঠতি-নাস্তিক, যারা সংশয়ের কবলে পড়েছেন, যারা এই মতাদর্শের প্রচার-প্রসারের পেছনের কাহিনি জানতে চান, সর্বোপরি সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে ‘আলিম সমাজের যারাই এই অসুখ মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়ার আগে রোধ করতে চান, তাদের সবার জন্য এই বই অবশ্যপাঠ্য।

মাত্র ৪০ টাকায়

২-৫ দিনের মধ্যে ডেলিভারি দেয়া হয়
 

ক্যাশ অন ডেলিভারি

শুধু মাত্র ঢাকা ও এর আশেপাশে প্রযোজ্য
 

০১৭২১ ৯৯৯ ১১২

ফোনের মাধ্যমে ও অর্ডার নেয়া হয়