প্রাচ্যবিদদের দাঁতের দাগ
মাত্র ৪০ টাকায় বাংলাদেশের যে কোন প্রান্তে বই পৌছে দেয়া হয় 
২-৫ দিনের মধ্যে বিতরণ যোগ্য

প্রাচ্যবিদদের দাঁতের দাগ

লেখকের মন্তব্য:

প্রাচ্যবাদ ইউরোপের জ্ঞানতাত্ত্বিক ভূগোলে কী গভীর পদচ্ছাপ রেখেছে, তার প্রমাণ দান্তে থেকে নিয়ে প্যাট্রিক মোদিয়ানো পর্যন্ত ছড়িয়ে আছে।

প্রতীচ্য ইসলামকে দেখে যে আয়নায়, বিচার করে যে পাল্লায়, পরিবেশন করে যে পাত্রে, সবই উৎপাদন করে দেয় প্রাচ্যবাদ।

এ উৎপাদনের গোড়ায় কাজ করে এমন এক মন, যা ইসলাম ও ইসলামী জগতকে প্রতিপক্ষ হিসেবে দেখেছে বরাবর। হাজির করছে সেই ইসলাম যা আসলে ইসলাম নয়।

প্রাচ্যবিদদের কাজগুলো আবৃত থাকে সতর্তকতার বর্মে। পাণ্ডিত্য ও প্রহেলিকার আড়ালে। এ বই চায় আড়ালগুলো সরে যাক, তাদের পরিচয়, প্রকৃতি, লক্ষ্য ও ইতিহাস প্রকাশ পাক। জবাবী গ্রন্থ নয় এটা, যদিও জবাব দেয়া হয়েছে প্রয়োজনে। 

ওদের বহুমাত্রিক অভিযোগরে পর্যালোচনা করবে এ ধারার পরবর্তি গ্রন্থ-‘এই সব অন্ধকার!’

প্রথম প্রকাশ: জুন, ২০১৫
১৩২.০০ ২২০.০০
 

ফোনে অর্ডার দিতে কল করুন

০১৭২১-৯৯৯-১১২

১। আপনি ফোন বা অনলাইন এর মাধ্যমে অর্ডার করার পর কিতাব ঘর আপনার সাথে যোগাযোগ করবে এবং আপনার বিলি ঠিকানা নিশ্চিত করবে ।

২। SMS এর মাধ্যমে আপনাকে আপনার অর্ডার নং ও অর্ডার এর মুল্য পাঠানো হবে ।

৩। কিতাব ঘর এখন ঢাকা ও এর আশেপাশে ক্যাশ অন ডেলিভারী ও কুরিয়ার সার্ভিস এর মাধ্যমে বই পাঠাচ্ছে । এবং ঢাকার বাইরে কুরিয়ার সার্ভিস এর মাধ্যমে বই পাঠাচ্ছে ।

৪। বই পাঠানোর ১-২ দিনের মধ্যে আপনারা আপানদের ঠিকানাতে বই পেয়ে যাবেন। কিন্তু বাংলাদেশের অনেক গ্রাম বা প্রত্যন্ত এলাকা যেখানে কোনো কুরিয়ার সার্ভিস এর সেবা নাই , সেখানকার জন্য জেলা বা থানা শহরের কুরিয়ার সার্ভিস অফিস হতে বই সংগ্রহ করতে হবে ।

৫। বইয়ের মুল্য bKash, ডাচ বাংলা মোবাইল বা ক্যাশ অন ডেলিভারী এর মাধ্যমে প্রদান করা যাবে । বাংলাদেশের যে কোনো প্রান্তে ৪০ টাকায় বই পৌছে দেয়া হবে ।

৬। যারা বাংলাদেশের বাইরে থেকে অর্ডার করবেন, তাদের জন্য ডেলিভারী চার্জ বইয়ের ওজন ও দেশের উপর নির্ভর করবে । বিভিন্ন দেশের ও বিভিন্ন পরিমানের ডেলিভারী চার্জ দেখতে এখানে ক্লিক করুন ।

অনুগ্রহ করে কিতাবঘর ডট কমে লগইন করুন । লগইন

প্রাচ্যবিদদের দাঁতের দাগ৷ ওরিয়েন্টালিজম, ওরিয়েন্টালিস্ট, استشراق، مستشرقين সব একই অর্থ বহন করে, অর্থাৎ প্রাচ্যবাদ৷ এই মতবাদের পণ্ডিতদের প্রাচ্যবিদ তথা مستشرقين বলে৷ এই শব্দগুলোর সাথে আমরা তেমন পরিচিত নই৷ কেন পরিচিত নই? এর উত্তরে স্রেফ 'আমাদের দুর্ভাগ্য' ছাড়া কিছুই বলার নেই৷ তাই বলে এই নয় যে এই মতবাদ খুব ফযীলতপূর্ণ৷ দুর্ভাগ্য এজন্যে যে যারা ইসলামের বিরুদ্ধে সদা-সর্বদা নতুন নতুন আবিষ্কৃত রাসায়নিক বিষ ছড়িয়ে দিচ্ছে ইসলামের আকাশে, মুসলমানদের মন-মগজে৷ আমাদের থেকেই তাদের উচ্ছিষ্টভোগী কিছু কুকুর আমাদের পেছনে লেলিয়ে দিয়েছে৷ তাদের চিন্তার দাস বানিয়ে রেখেছে৷ আবার এরাই বংশবিস্তার করে চলেছে চক্রবৃদ্ধি হারে৷ দুর্ভাগ্য এজন্যে যে, আমরা আমাদের আসল শত্রু চিনতে পারলাম না৷ দুর্ভাগ্য আমাদের, যারা আমাদের নাড়ি-ভূড়ি আঁত পর্যন্ত পৌঁছে ১৩০০ বছর অবধি কলিজায় আঘাত হানতেই থাকল, সেই তাদের আমরা এখনও চিনতেই পারলাম না৷ এখানেই দুর্ভাগ্য আমাদের । ইউরোপীয় সাহিত্যের অন্যতম কবি দান্তের ডিভাইন কমেডিতে ইসলামের নবীর উপর কতখানি বিদ্বিষ্ট মনোভাবে আক্রমণ করেছে একটু নজর ফেলি৷ সেখানে 'মাওমেত' নামে উল্লেখ করেছে মুহাম্মদ সা, কে৷ তার কাল্পনিক নরকের ৯ টি স্তরের অষ্টমটিতে 'মাওমেত' এর অবস্থান৷ এর আগে আছে অপেক্ষাকৃত কম পাপে বন্দি পাপীরা৷ যেমন কামুক, ধনলোলুপ, পেটুক, খ্রিস্টধর্মের বিরুদ্ধবাদী, আত্মহননকারী ইত্যাদি৷ নরকের সর্বনিম্ন স্তরে শয়তান৷ আর তার আগের ধাপটি জালকারী ও বিশ্বাসঘাতকদের জন্যে৷ সেখানে আছেন মাওমেত৷ মানবতার নবী সা, এর শানে আরো জঘন্য অরুচিকর হেয়পূর্ণ শাস্তির নির্লজ্জ বিবরণ দিয়েছে চরম ইসলামবিদ্বেষী খ্রিস্টান সাহিত্যিক দান্তে । আজ মানবতার নবীকে কটুক্তি করা হয় অশ্লীল ভাষায়, ভেতরে লুকায়িত যাবতীয় বিদ্বেষ নির্গত করা হয় রাসূলের মহা সম্মানজনক শানে৷ এর গোড়ার খবর কী আমরা রাখি? আজকের তসলিমা, আসিফ, রাজিব, শামসুর, জাফররা কার সৃষ্টি? এসবই প্রাচ্যবাদের বিষবাষ্প খ্রিস্টান ইউরোপীয় সাহিত্য হয়ে আমাদের সমাজ কলুষিত করছে৷ মুসলমানের বাচ্চাদেরকে তাদের উচ্ছিষ্টভোগী কুকুরে পরিণত করেছে এবং করে চলেছে । প্রাচ্যবিদদের আরেকটি ভয়াবহ দাঁতের দাগ হচ্ছে, ইসলামকে মোহামেডানিজম অর্থে ব্যবহার করা৷ যার অনুবাদ অনেকেই করে থাকেন দ্বীনে মুহাম্মদিয়্যাহ বলে৷ নিজেদের শব্দে ইউরোপীয় আবহ লক্ষ্য করে তারা পুলকিত হন৷ ভুলে যান মুহাম্মদ শব্দের সাথে 'ইজম' যুক্ত করে ইউরোপীয়রা আসলে কী বুঝাতে চায়৷ ইংরেজি ইদং এর ব্যবহার হয় কোনো তন্ত্র বা মতবাদ বুঝাতে৷ ন্যাশনালিজম-জাতীয়তাবাদ, সেক্যুলারিজম-ইহজাগতিকতাবাদ, কম্যুনিজম-সমাজতন্ত্র বুঝিয়ে আসছে জন্মের পর থেকেই৷ এভাবে ইজম শব্দটি ইসলামের ক্ষেত্রে চালিয়ে দিতে পারলে তার ঐশীত্ব ঘুচানো যাবে৷ ধারণা জন্মাবে এটা কোনো ঐশী ব্যাপার নয়৷ এক মহান ব্যক্তির মতবাদ৷ যাকে ধর্ম বলে চালিয়ে দেয়া হচ্ছে । এভাবেই ইসলামের উপর প্রাচ্যবিদদের সূক্ষ্ম নখর থাবার আঁচড়গুলো ভোতা করে দিয়েছেন, তাদের পর্দার আড়ালের মিশনগুলো দেরিতে হলেও একেবারে দিগম্বর করে দিয়েছেন আমাদের গর্বের ধন, জাতির সম্পদ মুসা আল হাফিজ ভাই৷ বাংলা ভাষায় এই বিষয়ের উপর এই প্রথম বইটির প্রতিটি পৃষ্ঠায় পৃষ্ঠায় রয়েছে শিহরণ জাগানিয়া বিস্ময়কর তথ্য, তাদের মিশনগুলোর প্রতিরোধক সমুচিত জবাব৷ প্রত্যেক শিক্ষিত সচেতন মুসলিমের এ বইটি পড়া দরকার । আমার দৃঢ় বিশ্বাস মুসা ভাই ( Musa Al Hafij ) এই বইটি এখলাসের সঙ্গে লিখে থাকলে কিয়ামতের দিন এটাই তাঁর নাযাতের কারণ হবে ইনশাআল্লাহ! - লিখেছেন -মুফতি জিয়া রাহমান সাহেব

মাত্র ৪০ টাকায়

২-৫ দিনের মধ্যে ডেলিভারি দেয়া হয়
 

ক্যাশ অন ডেলিভারি

শুধু মাত্র ঢাকা ও এর আশেপাশে প্রযোজ্য
 

০১৭২১ ৯৯৯ ১১২

ফোনের মাধ্যমে ও অর্ডার নেয়া হয়